আড়াইহাজার হাসপাতাল পরিদর্শনে এসে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী:
ডাঃ সায়মা আফরোজ ইভা সত্যিই অসাধারণ প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছেন

0
158

মাসুম বিল্লাহ :২১ আগস্ট আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শন করে গেলেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মোঃ মুরাদ হাসান এমপি। তিনি হাসপাতালের প্রতিটি বিভাগ ঘুরে ঘুরে দেখেন। প্রতিটি বিভাগ সাজানো গোছানো এবং পরিপূর্ণ দেখে মন্ত্রী সন্তোষ প্রকাশ করেন। পরিদর্শন শেষে তিনি পরিদর্শন খাতায় লিখেন, ‘৫০ শয্যা আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কমপ্লেক্স পরিদর্শন করে আমি সত্যিই মুগ্ধ ও বিস্মিত। এই কমপ্লেক্সের উপজেলা স্বাস্থ্য ও প:প: কর্মকর্তা ডাঃ সায়মা আফরোজ সত্যিই অসাধারণ প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছেন। যা সমগ্র বাংলাদেশে খুবই কম আছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রæতি বাংলার মানুষের ঘরে ঘরে প্রান্তিক পর্যায়ের মানুষের দোর গোড়ায় স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দেয়ার দায়িত্বটি সঠিকভাবে পালন করছেন ডাঃ ইভা। নিরন্তর শুভ কামনা ও দোয়া রইলো। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ চিরজীবি হোক।’


সূধীমহলের মতে, তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রীর প্রতিটি কথাই যেন প্রতিধ্বনিত হয় আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। হাসপাতালে রোগীর আনাগোনা বেড়েছে। আগে রোগী ঢাকায় ছুটতেন। এখন আধুনিক চিকিৎসা পেয়ে উপজেলা হাসপাতালমুখি হয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা প্রান্তিক জনগণের দোর গোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছাতে চেয়েছেন। সেই কাজটি নিখঁত ভাবে করছেন ডাঃ সায়মা আফরোজ। করোনা মহামারীকালে এই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর স্বাস্থ্যকর্মীরা গরীব দুখী মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। আড়াইহাজার উপজেলাবাসীর ভরসাস্থল এই হাসপাতাল। ‘ডাঃ সায়মা ইসলাম ইভা না হলে যে কি হত, সে কথা ভাবতেও গা শিউরে উঠে।’ একটি কথা থেকেই আঁচ করে নেয়া যায় ডাঃ ইভা আড়াইহাজারের স্বাস্থ্যখাতকে কিভাবে ট্যাকল করছেন। সুধীমহল তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন প্রতি মূহুর্তে। এই দুর্যোগকালে আড়াইহাজারবাসীর প্রাত:স্মরণীয় হয়ে উঠেছেন এই মহান চিকিৎসক।


করোনা মহামারীকালে আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স যুগান্তকারী ভ‚মিকা নিয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সায়মা ইসলাম ইভা’র নেতৃত্বে স্বাস্ত্যকর্মীরা যেনো করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করেছেন। জীবন পণ করে লড়াই করছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। করোনা রোগী আসলেই সকল আধুনিক চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এখান থেকে রোগী খুব বেশি রেফার্ড করা হয় না। ডাঃ ইভা চ্যালেঞ্জ নিয়েই দায়িত্ব পালন করছেন।
হাসপাতাল প্রাঙ্গনে ঢুকলেই নজর কাড়ে পরিচ্ছন্নতা। সবকিছু ছিমছাম। বেশ গোছানো। ডাক্তার, নার্স ও টেকনিসিয়ান থেকে শুরু করে পরিচ্ছন্নতাকর্মী-কারো মধ্যে কোন ধরনের ক্লান্তির ছাপ নেই। নেই কোন বিষন্নতা বা হতাশাবোধ। সকলেই বেশ উজ্জীবিত ও উদ্দীপ্ত। করোনা ইউনিটে করোনা রোগীদের চিকিৎসা চলছে। নিয়মিত অক্সিজেন তদারকি করা হচ্ছে। যাতে অক্সিজেন এর ঘাটতি না হয়। আবার করোনা টেস্ট এর কার্যক্রমও চলছে।
জানাগেছে, করোনা মহামারীকালে আড়াইহাজার উপজেলায় ‘আশার বাতিঘর’ একজনই। গ্রামের সাধারণ মানুষ তাঁর নামেই হাসপাতালে ছুটে আসেন। তিনি হলেন ডাঃ সায়মা আফরোজ ইভা। ডাঃ ইভা ম্যাডাম হাসপাতালে আছে কি না জেনে তবেই রোগী নিয়ে রওয়ানা হন গ্রামবাসী। যাকে মানুষ এতটা ভরসা করে সেই ডাঃ ইভা কিন্তু কখনোই নিজের কৃতিত্ব স্বীকার করেন না। মিডিয়ার কাছেও কিছু বলতে চান না। তিনি বলেন, ‘আমি কিছুই না। আমার সকল ডাক্তার, নার্স, টেকনিসিয়ান, পরিচ্ছন্নতা কর্মী, আয়া-বুয়া, রাধুঁনী, মশালচী ও বাগানের মালি পর্যন্ত সবাই মিলে আমরা যুদ্ধে নেমেছি। সাধারণ মানুষের দোয়ায় আমরা সফলতার দ্বারপ্রান্তে। আমরা এই মহামারী কাটিয়ে উঠতে সকলের সহযোগীতা কামনা করি। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন। যাতে আড়াইহাজারের একজন লোকও যাতে বিনা চিকিৎসায় না ভোগেন। আমরা জনগণের খেদমত করতে পারছি এটাই বড় কথা।’


এদিকে, আরো একধাপ এগিয়ে গেছে আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। চালু করা হয়েছে আধুনিক রেসপিরেটরি ইউনিট। করোনা রোগীর চিকিৎসা সেবায় এই ইউনিটটি বেশ কার্য্যকর। বেড়েছে স্বাস্থ্য সেবার মান। আগের চেয়ে সৌন্দর্য্যও বেড়েছে। পরিপাটি এই হাসপাতালটির আলাদা করোনা ইউনিটে সেবা নিচ্ছেন গ্রামের করোনা আক্রান্ত সাধারণ মানুষ। আড়াইহাজারবাসীর স্বাস্থ্যসেবায় যেন অতন্দ্র প্রহরী এখন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স।
জানাগেছে, ২০১৯ সালের ৩০ ডিসেম্বর এই পদে ডা. সায়মা আফরোজ ইভা যোগদান করেন। তারপর থেকে বদলে যেতে থাকে উপজেলার মানুষের চিকিৎসাসেবার একমাত্র ভরসার জায়গা এই সরকারী হাসপাতালটি। ডা. সায়মা আফরোজ ইভা প্রথমে হাসপাতালের চিরচেনা সমস্যা শনাক্ত করেন। এরপর তা সমাধানে উদ্যোগ নিতে শুরু করেন। তিনি হাসপাতালটিকে ডিজিটালাইজড করেন।
ডাঃ সায়মা আফরোজ এর দক্ষ নেতৃত্বে এগিয়ে চলেছে আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উন্নয়ন। আধুনিক পরিচ্ছন্ন ডিজিটাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হিসেবে ইতিমধ্যে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে চলেছে হাসপাতালটি। বর্তমান সরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স একটি অনুপ্রেরণার উৎস হতে পারে অনেকের জন্যই। হাজারো সীমাবদ্ধতার মাঝে ও নিজস্ব কারিশমাটিক দক্ষতায় স্বাস্থ্য ব্যবস্থার পাশাপাশি পরিবর্তন এনেছেন সৌন্দর্যবর্ধনে ও। ঐতিহ্যের পাশাপাশি আধুনিকতা’র ছাপ পাওয়া যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here