কালাপাহাড়িয়া ইউ: নির্বাচনের হাওয়া সেবার সুযোগ চান সুর্য

0
289

বিশেষ প্রতিনিধি : আলহাজ্ব মোফাজ্জল হোসাইন সূর্য। কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়নবাসীকে সালাম জানিয়েছেন। এবারের নির্বাচনে তিনি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক মোফাজ্জল হোসেন সূর্য একজন লড়াকু ছাত্রলীগ নেতা ছিলেন। বহু আন্দোলন সংগ্রামে ছিলেন অগ্রভাগে। জীবনে অনেক নির্যাতনের শিকারও হয়েছেন। সেই পোড়খাওয়া নেতা এবার এলাকাবাসীর সেবা করার সুযোগ প্রার্থনা করেছেন। সুধীমহল ও ভোটারদের মধ্যে সুর্যকে নিয়ে আলোচনা হচ্ছে।
মোফাজ্জল হোসেন সুর্য বলেন, আমার কোন চাওয়া পাওয়া নেই। আমি মানুষের জন্য রাজনীতি করি। এবার না হয় জনপ্রতিনিধি হয়ে মানুষের সেবা করার সুযোগ চাইছি। আমার পিতা মৃত:আব্দুল বাতেন বাচ্চু মিয়া। মাতা: নূরজাহান বেগম।আমার স্থায়ী ঠিকানা কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড। আড়াইহাজার, নারায়ণগঞ্জ। আমার স্কুল জীবন শুরু ২১নং কালাপাহাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় দিয়ে। আমার মাধ্যমিক পড়াশুনা বিজ্ঞান বিভাগ থেকে কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ে ব্যাচ ১৯৯৮। উচ্চ মাধ্যমিক দনিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ। এখানে আমার জীবনের ছাত্রলীগ শুরু। ২০০১-২০০২ সেশনে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে রসায়নে অনার্স। দনিয়া কলেজ থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ করি। দনিয়া কলেজ বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রলীগের আহŸায়ক ছিলাম। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের ছাত্রলীগের আহবায়ক ছিলাম ২০০৩ সালে।  ২০০৪ সালে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রিপন সাঈদ কমিটির সাথে কাজ করতে গিয়ে ছাত্রলীগের সভাপতি কামরুল হাসান রিপন ভাইয়ের সাথে আমি ও গুরুতর আহত হই শিবিরের আক্রমণে। আমাদের কে দীর্ঘ দিন ধানমন্ডি সেলবেশন হসপিটালে চিকিৎসা নিতে হয়। এছাড়া শিবির দ্বারা ২০০৫ সালে আবার ও আমাকে আহত করে।এর পর আমাকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্পাদকের দায়িত্ব দেওয়া হয়।
মোফাজ্জল হোসেন সুর্য আরো বলেন, ছাত্রলীগ শেষ করে ১/১১ শেখ হাসিনার লড়ুকা সৈনিক আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম বাবু ভাইয়ের সাথে আজ পর্যন্ত কাজ করে যাচ্ছি। বর্তমানে আমি আড়াইহাজার উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছি। আমাকে কালাপাহাড়িয়ার জনগণ একবার সুযোগ দিয়ে দেখুন। আমাকে একটিবার ভোট দিয়ে আপনাদের সেবা করার সুযোগ দিন। আমি আপনাদের জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করতে প্রস্তুত আছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here