মানুষকে ঘরে রাখতে আপ্রাণ চেষ্টায়
একজন ‘নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট’

0
204
করোনা ভা্ইরাস থেকে আড়াইহাজার উপজেলাকে সচেতন এবং দ্রব্যমূল্যে নিয়ন্ত্রণে রাখতে উপজেলা সহকারী ভূমি অফিসার এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উজ্জল হোসেন সার্বক্ষণিক মাঠে ছিলেন

মাসুম বিল্লাহ: নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলাসহ পুরো জেলা লকডাউন ঘোষণা করা হলেও আড়াইহাজারে অধিকাংশ মানুষ কৃষিকাজসহ বিভিন্ন কাজের সাথে জড়িত থাকায় তাদেরকে ঘরে রাখা কিছুটা কষ্টকর হয়ে পড়েছে। তবুও দিনরাত মানুষকে ঘরে রাখতে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সাথে নিয়ে মাঠে কাজ করছেন সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উজ্জ্বল হোসেন। তিনি আড়াইহাজার উপজেলায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিসেবে কর্মরত।
জানা গেছে, প্রতিদিন উপজেলার সকল গ্রামের বাজারগুলো ঘুরে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে অভিযান অব্যাহত রেখেছেন তিনি। কেউ দ্রব্যমূল্য বেশি রাখলে তাকে জরিমানাও করছেন তিনি। প্রতিদিন তার এ কার্যক্রমে পুরো উপজেলাবাসী এখন তাকে দেখলেই চেনেন। আড়ৎদার, মজুদদার, অতিমুনাফালোভী ব্যবসায়ীরা এখন তাকে দেখলেই আতংকিত থাকেন। পাশাপাশি যারা লকডাউন না মেনে রাস্তায় বের হন তারা দূর থেকে উজ্জ্বল হোসেনের আগমন দেখলেই দৌড়ে পালান।
অভিযানে থাকা একাধিক পুলিশ ও আনসার সদস্যদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, কোথাও মানুষের জটলা দেখলে একাই দৌড় দেন উজ্জ্বল হোসেন। তার এ দৌড় দেখে মুহুর্তেই পুরো এলাকা খালি হয়ে যায়। এতে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত হয়। আর তিনি নিজে করোনা আতংকিত পরিস্থিতিতে থাকলেও মানুষকে ঘরে রাখতে ও করোনা পরিস্থিতিতে তাদের নিরাপদ রাখতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন এই ম্যাজিস্ট্রেট।
এরমধ্যে গত ৩ দিন আগে সন্তানের পিতা হলেও সেখানে দূর থেকে একবার শুধু তাকে দেখে নিজের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। এর মধ্যে দায়িত্ববোধের কারণে আর যেতেও পারেননি সন্তানের কাছে।
জানা যায়, ইতোমধ্যে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন জেলা প্রশাসনের দুজন সহকারি কমিশনার, মারা গেছেন একজন কর্মকর্তা। এর মধ্যেই নিয়মিত সকল ভয়ভীতিকে তুচ্ছ করে ও মৃত্যুর ভাইরাসকে উপেক্ষা করেই তিনি নিয়মিত কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন মানুষের সেবা করতে। এর মধ্যে কোন শিল্প কারখানা খোলা রাখলে কিংবা নিয়মের বাইরে বেশি দাম রাখলে ও মেয়াদোত্তীর্ণ, নিম্নমানের পণ্য বিক্রি করলে সেখানেও জরিমানা ঠুকে দিচ্ছেন তিনি। তার এ কর্মকান্ডে স্থানীয় সচেতন ও সাধারণ মানুষ খুশি। তারা সকলেই তার কাজের প্রশংসা করছেন।
এদের মধ্যে স্থানীয় নজরুল ইসলাম নামের এক বয়স্ক ব্যক্তি জানান, তাকে তো নিয়মিত এখানে অভিযান চালাতে দেখতে দেখতে আমরা চিনে গেছি। উপজেলাবাসীর আস্থার স্থানে তাকে আমরা বসিয়েছি। তিনি এ কঠিন সময়ে আমাদের ভরসা। তার মত ম্যাজিস্ট্রেট যদি সকল উপজেলায় থাকতো তাহলে আর কোথাও কোন সমস্যা থাকতোনা। দায়িত্ববোধ কি জিনিস এবং সেটা কিভাবে পালন করতে হয় তাই দেখিয়ে যাচ্ছেন এ কর্মকর্তা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here